আন্তর্জাতিকনতুন খবর

যাওয়ার সময় তালিবানদের জন্য বিমান, হেলিকপ্টার আর অসহার আফগানদের রেখে গেল আমেরিকা

নয়া দিল্লিঃ তালিবানের ডেডলাইনের একদিন আগেই আফগানিস্তান ছাড়ল মার্কিন সেনা। এখন গোটা দেশেই তালিবানদের শাসন কায়েম হবে। যদিও, গোটা দেশ বলা ভুল হবে, কারণ তালিবানরা এখন পঞ্জশির দখল করতে পারেনি। তবে শেষ মার্কিন বিমান সোমবার আকাশে উড়তেই তালিবানরা কাবুল এয়ারপোর্টে ঢুকে পড়ে আর হাওয়ায় ফায়ারিং করে খুশি জাহির করে। তালিবানরা এই অবসরে বাজিও ফাটায়। শেষ বিমানের সাথেই আফগানিস্তানে আমেরিকার ২০ বছরে যুদ্ধ শেষ হল।

ডেইলি মেল-র রিপোর্ট অনুযায়ী, শেষ মার্কিন বিমান আকাশে উড়তেই তালিবানরা কাবুল এয়ারপোর্টে ঢুকে পড়ে আর উৎসব পালন করতে শুরু করে দেয়। কাবুলের আকাশে রংবেরঙের বাজি দেখা যায়। যদিও, সাধারণ আফগান নাগরিকরা এখন আতঙ্কের মধ্যেই দিন কাটাচ্ছে।

মার্কিন সেনা কিছু হেলিকপ্টার আর বিমান কাবুল বিমানবন্দরে ছেড়ে চলে যায়। তালিবানিরা সেই বিমান এবং হেলিকপ্টার গুলির নিরীক্ষণ করা শুরু করে দেয়। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে মার্কিন সেনা ফেরত যেতেই তালিবানরা খুশিতে পাগল হয়ে যায়। তাঁরা হাওয়ায় ফায়ারিং করতে করতে বিমানবন্দরে দাখিল হয় এবং বাচ্চাদের মতো মার্কিন সেনার ছেড়ে যাওয়া বিমান এবং হেলিকপ্টারগুলির সামনে গিয়ে ছবি তুলতে থাকে।

তবে একদিকে যেমন মার্কিন সেনা চলে যাওয়ার পর তালিবানদের মধ্যে জয়ের আনন্দ দেখা গিয়েছে। অন্যদিকে আবার অনেক আফগানিদের মনোবল ভেঙে গিয়েছে। উল্লেখ্য, ৩১ আগস্টের মধ্যে আমেরিকার সেনা তুলে নেওয়ার হুমকি দিয়েছিল তালিবান। আর আমেরিকা সেই ডেডলাইন শেষ হওয়ার একদিন আগেই তাঁদের সেনা প্রত্যাহার করে নেয়।

যদিও, সহস্র আফগানি যারা আমেরিকার আর ব্রিটেনের সাহায্য করেছিল তাঁরা এখন আফগানিস্তানেই পড়ে রয়েছে। আর তাঁদের ভবিষ্যৎ কী হবে, সেটা এখন তালিবানরাই ঠিক করবে। তবে তালিবানদের কাছে ৩০ আগস্ট নতুন স্বাধীনতার দিন হিসেবে পালিত হল।

Related Articles

Back to top button