Press "Enter" to skip to content

ভারতে ঢুকতে না পেরে পাকিস্তানি জঙ্গিরা নিজেদের মধ্যেই মারপিট করছে! গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এলো তথ্য

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ জম্মু কাশ্মীরের সন্ত্রাসী আস্তানা গুলোতে ভারতীয় সেনার (Indian Army) লাগাতার অ্যাকশনে পাকিস্তানে (Pakistan) আতঙ্কের ছায়া অনুপ্রবেশের সুযোগ না পাওয়া পাকিস্তানি সীমায় বানানো লঞ্চ প্যাডে সন্ত্রাসীদের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে। জম্মু কাশ্মীরে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার কাজ করা এক আধিকারিক জানান, পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে ডজন খানেকের উপর লঞ্চ প্যাডে চারশোর বেশি প্রশিক্ষিত সন্ত্রাসী ভারতে ঢোকার জন্য অপেক্ষা করছে।

যদি বিগত তিন-চার মাসের কথা বলা হয়, তাহলে সীমান্তের ওপার থেকে ভারতে ঢোকা সন্ত্রাসীর সংখ্যা আগের তুলনায় অনেক কম। গত সপ্তাহে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের তিনটি লঞ্চ প্যাড আর খাইবার পাখতুনখায়ের একটি লঞ্চপ্যাডে জেহাদিরা নিজেদের মধ্যে মারপিট শুরু করে দেয়। সেখানে প্রায় ৩০০ জেহাদি এমন আছে, যারা বিগত পাঁচ মাস আগে এসেছে কিন্তু এখনো ভারতে ঢোকার সুযোগ পায়নি। ISI আর বিভিন্ন জেহাদি সংগঠনের মধ্যে ভারতে অনুপ্রবেশ নিয়ে অন্ত্রদ্বন্দ্ব এর খবর সামনে আসছে।

সুত্র অনুযায়ী, পাকিস্তানে লস্কর-ই-তইবা এর জেহাদির সংখ্যা সবথেকে বেশি। এটা বলা যেতে পারে যে, লঞ্চ প্যাডে অর্ধেকের বেশি জেহাদি লস্করের। এরপর জইশ-ই-মোহম্মদ এর নম্বর আসে। এই সংগঠনের প্রায় ১৪০ জন জেহাদি লঞ্চ প্যাডে আছে। হিজবুল আর নতুন সংগঠনের জেহাদিদের সংখ্যা এখনো পর্যন্ত অনেক কম।

জেহাদিদের সর্বাধিক ট্রেনিং পাক অধিকৃত কাশ্মীরে হয়। প্রায় সব সংগঠনের ক্যাম্পই সেখানে আছে। এরপর পাকিস্তানের পাঞ্জাব আর খাইবার পাখতুনখায়ে সন্ত্রাসীদের ক্যাম্প আছে। তাদের ভারতে ঢোকানোর জন্য পাক অধিকৃত কাশ্মীরে বানানো লঞ্চ প্যাডের ব্যবহার হয়।