আন্তর্জাতিকনতুন খবর

যত নষ্টের গোড়া চীন! ভারতের পাশে দাঁড়িয়ে বেজিংয়কে ধুয়ে দিলেন তিব্বতের প্রধানমন্ত্রী

নয়া দিল্লীঃ তিব্বতের (Tibet) নির্বাসিত সরকারের প্রধানমন্ত্রী লবসং সানগিয়ে (lobsang sangay) বলেন গালওয়ান উপত্যকায় চীনের (China) কোন অধিকার নেই। যদি চীনের সরকার ওই এলাকায় তাদের অধিকার দাবি করে, তাহলে সেটা ভুল। গালওয়ান নাম লাদাখেরই দেওয়া, আর এই কারণে চীনের এরকম দাবির কোন মানেই হয়না। প্রধানমন্ত্রী লবসং সানগিয়ে বলেন অহিংসা ভারতের ঐতিহ্য আর এর পালন ওঁরা যথাযথ ভাবে করে।

উনি বলে আরেকদিকে, চীন অহিংসার কথা বললেও পালন কোনদিনও করেনা। তাঁরা সবসময় হিংসার রাস্তায় চলে। আর এর জলজ্যান্ত দৃষ্টান্ত হল তিব্বত। চীন হিংসা চালিয়েই তিব্বতে কবজা করে রেখেছে। এই সমস্যার থেকে সমাধান নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিব্বতকে জন অফ পিস বানাতে হবে। দুই সীমান্তকে সেনা মুক্ত করতে হবে। তখনই শান্তি বজায় হবে। ভারত আর চীনের মধ্যে তিব্বত আছে আর যতদিন না তিব্বতের সমস্যা সমাধান হবে, ততদিন এরকম উত্তেজক পরিস্থিতি বজায় থাকবে।

উনি বলেন, চীন এশিয়ার ১ নম্বর দেশ হতে চাইছে। এশিয়ায় চীনের প্রতিদ্বন্দ্বী ভারত, ইন্দোনেশিয়া আর জাপান। আর এর জন্য চীন লাদাখ, অরুণাচল, সিকিম, নেপাল, ভুটানকে নিজের বসে আনতে চায়। এর আগে চীন ডোকালামে অশান্তি ছড়িয়েছে, এবার লাদাখে নিজেদের গতিবিধি বাড়াচ্ছে। আরেকদিকে, নেপালের সাথেও ভারতের সম্পর্ক খারাপ করছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আর্থিক দিক থেকে চীনকে শিক্ষা দেওয়া যেতে পারে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কিছু চুক্তি বাতিল করে চীনকে কড়া বার্তা দিয়ে দিয়েছে। উনি বলেন, ভারত আর চীনের মধ্যে ব্যবসা চলছে আর সেই ব্যবসার ফলে চীনের দ্বিগুণ লাভ হচ্ছে আর এই কারণে ব্যবসাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে।

Related Articles

Back to top button