নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

বাংলা ছেড়ে উত্তর প্রদেশে যাবেন মমতা, প্রার্থী হতে পারেন মোদীর বিরুদ্ধে

কলকাতাঃ গতকাল একদিকে দ্বিতীয় দফার নির্বাচন চলছিল। আরেকদিকে, সেই সময় বঙ্গ সফরে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি জয়নগরে একটি জনসভা করেন গতকাল। আর সেই সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করে বলেন, ‘নন্দীগ্রামে দিদি হেরে গেছেন, উনি এখন নিজের জন্য নতুন করে একটি সুরক্ষিত আসন খুঁজছেন।” নরেন্দ্র মোদীর এই মন্তব্যের পর জবাব দেয় তৃণমূল। দলের নেতৃত্বের তরফ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয় যে, তিনি অন্য কোনও আসনে লড়বেন না। আর তিনি নন্দীগ্রামে জিতছেন।

এরপর রাতের দিকে তৃণমূলের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে নরেন্দ্র মোদীকে ট্যাগ করে একটি পোস্ট করা হয়। সেখানে লেখা হয়, ‘দিদি নন্দীগ্রামে জিতছেন এটা ১০০ শতাংশ নিশ্চিত। তবে ২০২৪-এর নির্বাচনে আপনি একটি সুরক্ষিত আসন খুঁজে নিন। কারণ বারাণসীতে আপনি বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে চলেছেন।” তৃণমূলের এই টুইটের পর জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে যে, তাহলে কি ২০২৪-এর নির্বাচনে বারাণসীতে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে প্রার্থী হচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়?

নিজের নির্বাচনী প্রচারে রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করে বলেছিলেন যে, আগে দিল্লী সামলান তারপর বাংলা নিয়ে ভাববেন। আর এরমধ্যে গতকাল তৃণমূলের তরফ থেকে এই টুইট নতুন করে জল্পনা উস্কে দিয়েছে। বলে রাখি, দ্বিতীয় দফার নির্বাচনের একদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি বিরোধী দলগুলোকে এক হওয়ার আবেদন জানিয়ে একটি চিঠি লিখিছিলেন।

কংগ্রেসের সাংসদ তথা সভাপতি সোনিয়া গান্ধী, এনসিপির প্রধান শরদ পাওয়ার, উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক, দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল, বিহারের রাষ্ট্রীয় জনতা দলের নেতা তেজস্বী যাদব সমেত ১৬ জন নেতাকে চিঠি পাঠিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে এক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এরই মধ্যে তৃণমূলের এই টুইট নতুন সমীকরণের ইঙ্গিত দিচ্ছে।

Related Articles

Back to top button