নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

নগেন্দ্র ত্রিপাঠিকে অনুব্রতর গড়ে পাঠানোয় চটলেন ডেরেক, টুইট করে উগরে দিলেন ক্ষোভ

কলকাতাঃ নন্দীগ্রামের বয়ালের বুথে যখন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায় ঘণ্টা খানেক আটকে ছিলেন, তখন সেখানে পরিস্থিতি সামলে দিতে উপস্থিত হয়েছিলেন আইপিএস নগেন্দ্র ত্রিপাঠী। মুখ্যমন্ত্রী ওনাকে যখন নন্দীগ্রামের বুথে অসঙ্গতির কথা বলেছিলেন, তখন নগ্রেন্দ্র ত্রিপাঠী মুখ্যমন্ত্রীর চোখে চোখ রেখে বলেছিলেন, ‘ম্যাডাম খাকি পরে দাগ নেব না।” নগেন্দ্র ত্রিপাঠীর সেই বক্তব্যের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। চারিদিকে ওনাকে নিয়ে প্রশংসার বন্যা বয়ে যায়। এবার সেই নগেন্দ্র ত্রিপাঠীকে দায়িত্ব দেওয়া হল বীরভূমের পুলিশ সুপার হিসেবে।

বীরভূমের পুলিশ সুপার মিরাজ খালিদকে বদলি করে নতুন করে নগেন্দ্র ত্রিপাঠীকে দায়িত্ব দিল কমিশন। এটাই প্রথম না যে, নির্বাচনের আগে কোনও জেলার পুলিশ সুপার অথবা প্রশাসনিক আধিকারিকদের বদলি করল কমিশন। এর আগেও একাধিকবার আমলাদের বদলি করে কমিশন তাঁদের কড়া মনোভাব প্রকাশ করেছিল। তবে শুভেন্দু নগেন্দ্র ত্রিপাঠীকেই না, এর সঙ্গে আরও দুই অফিসারকে বদলি করল কমিশন।

কমিশনের এই সিদ্ধান্তের পর আপত্তি জাহির করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। শাসক দলের রাজ্যসভা সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন একটি টুইট করে লেখেন, ‘নন্দীগ্রামের নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা পুলিশ আধিকারিক নগেন্দ্র ত্রিপাঠীকে রাজ্যের সঙ্গে কোনও আলোচনা না করেই বীরভূমে পাঠিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন।”

ডেরেকবাবু আরও লেখেন, ‘ইলেকশন কমিশন EC এর অর্থ এখন ‘Extremely Compromised” হয়ে গেছে।” কেন্দ্রের মোদী সরকার আর নির্বাচন কমিশনের আঁতাতের ইঙ্গিত করে তৃণমূলের সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন দাবি করেছেন যে, নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ নয়। তিনি লিখেছেন, ‘নির্বাচন আচরণবিধি না মেনেই ভোটের ৪৮ ঘণ্টা আগে চার অফিসারকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন।”

নগেন্দ্র ত্রিপাঠীকে বীরভূমের দায়িত্ব দেওয়ার পর আজ পূর্ব বর্ধমানের পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় এবং আসানসোল দুর্গাপুরের পুলিশ সুপার সুকেশ জৈনকে বদল করা হয়েছে কমিশনের পক্ষ থেকে। ওনাদের যায়গায় নতুন করে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অজিত কুমার সিংহ এবং নীতিশ জৈনকে। এছাড়াও বীরভূমের বিলৌরের SDPO অভিষেক রায়কে সরিয়ে নাগারাজ দেবারাকোন্ডাকে দায়িত্ব দিল কমিশন।

উল্লেখ্য, এই জেলা গুলোতে আগামী দিনে নির্বাচন হতে চলেছে। আর নির্বাচনের মধ্যে অশান্তি এড়াতে কমিশনের তরফ থেকে একাধিক পুলিশ কর্তাকে সরানো হল।

Related Articles

Back to top button