Press "Enter" to skip to content

দুবারের পঞ্চায়েত প্রধান আর দেড় হাজারের বেশি কর্মী সমর্থক তৃণমূল ছেড়ে যোগ দিলো বিজেপিতে

শেয়ার করুন -

হুগলীঃ ২০২১ এর ভোটের আগে ব্যাপক বেকায়দায় তৃণমূল (All India Trinamool Congress)। আজ হুগলীর আরামবাগে তৃণমূলের এসসি, এসটি, ওবিসি সেল ও শ্রমিক সংগঠনে থাবা বসাল বিজেপি (Bharatiya Janata Party)। আজ হরিপালে তৃণমূলের এসসি, এসটি, ওবিসি সেলের সভাপতি চন্দ্রনাথ দাস ও শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসির সভাপতি রমেশ মান্না গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নেন। এছাড়াও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন দুই বারের পঞ্চায়েত প্রধান এবং ৬ জন বুথ সভাপতি।

এছাড়াও আজ হুগলীর আরামবাগ লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল এবং সিপিএম ছেড়ে বিজপিতে যোগ দেন ৫০০ টি পরিবার। স্বভাবতই ২১ এর ভোটের আগে তৃণমূলের কাছে এটি একটি পাহাড় প্রমাণ ধাক্কা। যদিও এই দল ভাঙার খেলায় পিছিয়ে নেই তৃণমূলও। রোজই রাজ্যের কোন না কোন জায়গা থেকে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছে শতাধিক কর্মী-সমর্থক।

আরেকদিকে সিপিএমকেও ভাঙার খেলায় নেমেছে বিজেপি। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সিপিএম ছেড়ে বহু মানুষ যোগ দিচ্ছে বিজেপিতে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগে কোমর বেঁধে নেমেছে রাজ্যের প্রতিটি দলই। বিধানসভার নির্বাচনের আগে নিজেদের সংগঠন মজবুত করতে চালানো হচ্ছে যোগদান অভিযান। তবে এই যোগদান অভিজানে এগিয়ে আছে তৃণমূল এবং বিজেপি।

একদিকে রাজ্যে যখন করোনার সংখ্যা দিনদিন বেড়ে চলেছে। তখন আরেকদিকে, রাজ্যের রাজনৈতিক দল গুলো বিধানসভা নির্বাচনের আগে নিজেদের ঘর গোছাতে ব্যস্ত। আরেকদিকে, রাজ্যের আবার নতুন করে লকডাউনের ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। মালদায় (malda) দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে করোনা। তাই সোমবার সন্ধ্যায় ফের লকডাউন (lockdown) ঘোষণা করা হয়েছে মালদায়। মালদার দুটি ব্লকে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন।