নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

ত্রাণের টাকা দিয়ে পিকনিক করতে গিয়ে গ্রামবাসীদের কাছে হাতেনাতে ধরা পড়লেন তৃণমূল নেতা

বাগদাঃ করোনার সঙ্কটের মধ্যে তৃণমূল (All India Trinamool Congress) নেতাদের চাল চুরির অনেক খবরই পেয়েছি আমরা। এবার চাল চুরির থেকে একটু উন্নত হয়ে ত্রাণের টাকা মেরে পিকিনিক করার অভিযোগ উঠল তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ উঠেছে বিজেপির তরফ থেকে। আর তৃণমূল নেতাদের পিকনিক চলাকালীন গ্রামবাসী এবং বিজেপির নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বাগদা থানা এলাকার পরমাদন অভয়ারণ্যে।

স্থানীয় সুত্র অনুযায়ী, তৃণমূল নেতা তথা উত্তর ২৪ পরগনার জেলা পরিষদের সদস্য পরিতোষ সাহা এবং ওনার অনুগামীরা ওই অভয়ারণ্যে ঢুকে পিকনিক করছিলেন। প্রায় শ দেড়েক অনুগামী নিয়ে চলছিল এই পিকনিক। এই আয়োজনে মদ, খাসির মাংস, নাচ-গান সব কিছুরই ব্যবস্থা করা হয়েছি। সকাল থেকেই চলছিল এই বিশাল আয়োজন।

লকডাউনের কারণে অভয়ারণ্য বন্ধ থাকলেও, তৃণমূল নেতাদের পিকনিক করার জন্য খুলে দেওয়া হয় গেট। আর এতেই এগে লাল হয়ে যায় গ্রামবাসী। তাঁরা অভিযোগ করে জানান যে, রেশনের চাল চুরি থেকে শুরু করে গৃহহীন মানুষদের ক্ষতিপূরণের টাকা পর্যন্ত খেয়ে বসে আছেন পরিতোষ বাবু। তাঁরা এমনও অভিযোগ করেন যে, সেই টাকা দিয়েই চলছে তৃণমূলের এই বিশাল আয়োজন। অনেকেই বলছেন, একদিকে মানুষ খেতে পারছে না, তখন আরেকদিকে এরা এরকম কাজ করতে পারে কি করে?

ঘটনার খবর পেতেই বিজেপির নেতাও সেখানে গিয়ে উপস্থিত হন। বিজেপির জেলা সভাপতি দেবদাস মণ্ডল বলেন, এরকম অমানবিক কাজ একমাত্র তৃণমূলের দ্বারাই করা সম্ভব। মানুষের কাজ চলে গেছে, দুবেলা দুমুঠো খেতে পারছে না। ঝড়ে রাজ্যে বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অনেকেই এখনো গৃহহীন আর এর মধ্যে তৃণমূলের নেতারা মদ, মাংস দিয়ে উল্লাস করছে। এর থেকে লজ্জার ব্যাপার আজকের দিনে আর কিছুই হতে পারেনা।

আরেকদিকে সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্য পরিতোষ বাবু বলেন, আমরা সেখানে গেছিলাম ঠিকই কিন্তু কোন পিকনিক করতে না। আমফানে সেখানে অনেক গাছ ভেঙে গেছিল আর মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর নির্দেশে আমরা সেখানে গাছ লাগাতে যাই।

Related Articles

Back to top button