Press "Enter" to skip to content

বিজেপির বিরুদ্ধে লড়লে হার নিশ্চিত! প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের পথে তৃণমূল নেত্রী

শেয়ার করুন -

মালদহঃ আসন পছন্দ নয় আগেই জানিয়েছিলেন। কিন্তু তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোনেননি। প্রার্থী চেয়েছিলেন পুরাতন মালদহ থেকে ভোটে লড়তে। কিন্তু তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওনাকে মালদহের হবিবপুরের প্রার্থী করে দেন। আর তাতেই বেঁকে বসেন তৃণমূল নেত্রী সরলা মুর্মু। আর এখন তিনি প্রার্থিপদ প্রত্যাহারের পথে। তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার ৪৮ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই তিনি রওনা দিলেন কলকাতার উদ্দেশ্যে।

ওনার কলকাতা সফর নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। উনি আসন বদলাতে কালীঘাটে যাচ্ছেন? না অন্য কোথাও? সেটার জবাব তিনি দেননি। তবে ওনার ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর অনুযায়ী তিনি বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, হবিবপুরে সরলা মুর্মুর জেতা অনেক কঠিন। ওই আসনে একদা ক্ষমতায় ছিলেন তৎকালীন সিপিএম বিধায়ক খগেন মুর্মু। ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের আগে খগেনবাবু বিজেপিতে যোগ দেন। আর তিনি সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হন। এরপর খগেনবাবুর খালি বিধানসভা আসনে উপ নির্বাচনে বিজেপির প্রার্থী জুয়েল মুর্মু জয়ী হন।

এবারও জুয়েলবাবু ওই আসন থেকেই নির্বাচনে লড়তে পারেন। আর জুয়েল মুর্মুর বিরুদ্ধে সরলা মুর্মুর জয় বেশ কঠিন। সেই কারণেই সরলা মুর্মু ওই আসনে দাঁড়াতে চাইছেন না। আর পুরাতন মালদহ সরলা মুর্মুর জন্মস্থান সেখানে দাঁড়ালে তিনি জয় পেলেও পেতে পারেন, সেই কারণে হবিবপুর ছেড়ে পুরাতন মালদহ থেকে নির্বাচনে লড়তে চান তিনি। তবে সরলাদেবী এখন কি করবেন সেটা সকাল হলেই জানা যাবে। তিনি ঘাসফুলেই থাকবেন, না পদ্মফুলে যাবেন। সেটা এই মুহূর্তে বলা দুস্কর। তবে সরলাদেবীর অনুগামীদের মতে, সরলাদেবী বিজেপিতে যোগ দিয়ে পুরাতন মালদহ আসন থেকে লড়তে পারেন।