Press "Enter" to skip to content

দলের কর্মীরা মিছিলে এগিয়ে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে প্রচার বন্ধ করলেন তৃণমূল প্রার্থী রাজ চক্রবর্তী! ভাইরাল হল ভিডিও

শেয়ার করুন -

ব্যারাকপুরঃ রাজ্যে নির্বাচনী প্রচার তুঙ্গে। আগামীকাল ১০ এপ্রিল চতুর্থ দফার নির্বাচন হতে চলেছে। আগামীকালের নির্বাচনের পর আর চার দফার নির্বাচন বাকি থাকবে। চতুর্থ দফার নির্বাচনের আগে আরও কড়া হচ্ছে নির্বাচন কমিশন। বাড়ানো হচ্ছে নিরাপত্তাও। আরেকদিকে, চতুর্থ দফার নির্বাচনের আগে দুটি বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দু’বার নোটিশ পাঠানো হয়েছে কমিশনের তরফ থেকে। ১০ এপ্রিলের মধ্যে জবাবদিহি করতে হবে তৃণমূল নেত্রীকে।

এছাড়াও বিজেপির নেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও নোটিশ পাঠিয়েছে কমিশন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বেগম বলার জেরে শুভেন্দুকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে কমিশনের তরফ থেকে।

আর এই নির্বাচনের মধ্যে ব্যারাকপুরের তৃণমূল প্রার্থী রাজ চক্রবর্তীর একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে। দাবি করা হচ্ছে যে, প্রচারের সময় তৃণমূলের কর্মীরা রাজ চক্রবর্তীর থেকে এগিয়ে যায় বলে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে প্রচার বন্ধ করে দেন। যদিও আমাদের পক্ষে এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি। আগামী ২২ এপ্রিল উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হতে চলেছে। আর সেই কেন্দ্রে তৃণমূলের তরফ থেকে পরিচালক রাজ চক্রবর্তীকে প্রার্থী করা হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে, রাজ চক্রবর্তী মিছিল করার সময় আচমকাই থেমে যান। এরপর ওনাকে ক্ষুব্ধ হয়ে দলীয় কর্মীদের বলতে দেখা যাচ্ছে যে, ‘আমার সঙ্গে ইয়ার্কি হচ্ছে?” এরপর সেখানে উপস্থিত তৃণমূল কর্মীদের বলতে শোনা যাচ্ছে যে, ওঁরা এগিয়ে গেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল এই ভিডিওতে দাবি করা হচ্ছে যে, তৃণমূলের সাধারণ কর্মীরা মিছিলে রাজ চক্রবর্তীর থেকে এগিয়ে যাওয়ার কারণে রাজবাবু ক্ষুব্ধ হয়ে মিছিল ছেড়ে দেন। বিশাল জয়সওয়াল নামের এক ব্যক্তি ১৫ ঘণ্টা আগে ফেসবুকে এই ভিডিওটি পোস্ট করেছেন।

বিশাল জয়সওয়াল নিজের ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘ইনি হলেন ব্যারাকপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী রাজ চক্রবর্তী। প্রচারে তৃণমূল কর্মীরা ওনার থেকে এগিয়ে যাওয়ার কারণে উনি প্রচার ছেড়ে দেন।” এরপর তিনি লেখেন, ‘এবার আপনারাই ভাবুন যে, যিনি নিজেদের কর্মীদেরই সহ্য করতে পারেন না, তিনি সাধারণ মানুষকে কি করে সহ্য করবেন?” এরপর তিনি ব্যারাকপুরের বিজেপি প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার আবেদন করেন।