নতুন খবররাজনীতি

এক সময় যোগীকে এরাজ্যে সভা করতে দেননি মমতা ব্যানার্জী! এবার উনি যোগীর রাজ্যেই পাঠাচ্ছেন প্রতিনিধি দল

২০১৯ এর লোকসভা ভোটে এরাজ্যের নির্বাচনী প্রচার নিয়ে মমতা ব্যানার্জীর প্রশাসনের বাধা সৃষ্টি করার কথা আমরা কম বেশি সবাই জানি। কিভাবে মমতা ব্যানার্জীর প্রশাসন একের পর এক বিজেপির নেতা নেত্রীদের সভা করতে বাধা দিয়েছিল এটা হয়ত কারোরই অজানা নেই। এমনকি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভার অনুমতি জোগাড় করতে মাথার ঘাম পায়ে পড়েছিল বিজেপি নেতাদের।

২০১৯ এর নির্বাচনে এরাজ্যে বনগাঁর ঠাকুর নগরের মাথে সর্বপ্রথম সভা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেই সভার অনুমতি জোগাড় করতে হিমশিম খেতে হয়েছিল বিজেপিকে। এই ঘটনার নিন্দায় সরব হয়েছিল গোটা বিজেপি দল। বিজেপির তরফ থেকে বারবার অভিযোগ করা হয়েছিল যে, রাজ্যে মমতা ব্যানার্জী অগণতান্ত্রিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে বিজেপিকে সভা করা থেকে আটকাচ্ছে।

শুধু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর না, তৃণমূলের পক্ষে থেকে সভা আটকানো হয়েছিল শিবরাজ সিং চৌহান, স্মৃতি ইরানি, অরুণ জেটলি, অমিত শাহ সমেত সমস্ত বিজেপি নেতা নেত্রীদের। এমনকি রাহুল গান্ধীরও একটি সভা বানচাল করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। আর এই নেতা নেত্রীদের মধ্যে সবথেকে বেশি সভা পণ্ড করা হয়েছিল উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। কোথাও হেলিকপ্টার নামতে দেওয়া হয়নি, আবার কোথাও সভা মাথে রাতারাতি জল ছেড়ে দিয়ে যোগী আদিত্যনাথের সভা আটকেছিল তৃণমূল।

এরবার সেই তৃণমূল দলই উত্তর প্রদেশে নাগরিকতা সংশোধন আইনে হওয়া হিংসার কারণে মৃত্যু হওয়া ব্যাক্তিদের বাড়ি পরিদর্শন করার জন্য যোগীর রাজ্যে প্রতিনিধি দল পাঠাচ্ছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, লোকসভা ভোটের পর তৃণমূল এর আগে একবার প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছিল উত্তর প্রদেশে, সেই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সভার সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন। তৃণমূলের এই প্রতিনিধি দলকে বিমান বন্দরেই আটকে দিয়েছিল যোগীর পুলিশ। তখন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন সোশ্যাল মিডিয়া আর ইলেকট্রনিক মিডিয়াতে যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন। এবার আরও একবার সেই যোগীর রাজ্যেই প্রতিনিধি দল পাঠাচ্ছে তৃণমূল।

Related Articles

Back to top button