আন্তর্জাতিকনতুন খবর

রমজানে রোজা রাখতে বাধা উইঘুর মুসলিমদের, জোরপূর্বক খাওয়ানো হয় খাবার! মুখ খুললেন উইঘুরদের প্রতিনিধি

চীনের শিনজিয়াং প্রান্তে উইঘুর মুসলিমদের উপর অত্যাচার কারোর থেকে লুকিয়ে নেই। চীন অত্যন্ত বর্বরতার সাথে উইঘুর মুসলিমদের দমন করে এবং ধর্ম পালনে বাধা দেয়। সম্প্রতি বিশ্ব উইঘুর কংগ্রেসের সভাপতি ডলকন ঈসা এক ওয়েবিনারে এই বিষয়ে চর্চা করেছেন। উনি বলেছেন, উইঘুর মুসলিমদের রোজা রাখার অনুমতি নেই।

উইঘুর মুসলিমদের রোজার দিন নিষিদ্ধ খাবার খেতে বাধ্য করা হয় বলেও অভিযোগ তুলেছেন তিনি। তিরুবন্তপুরমে অবস্থিত সেন্টার ফর পলিসি এন্ড ডেভলপমেন্ট স্টাডিজ দ্বারা আয়োজিত ওয়েবিনারে নিজের বক্তব্য প্রকাশ করতে গিয়ে উইঘুর মুসলিমদের উপর চীনের অত্যাচারের কথা বলেন। ঘটনাটিকে মানবাধিকারের উলঙ্ঘন বলে মন্তব্য করেন ডালকন ঈসা।

উনি বলেন, শিনজিয়াং প্রান্তে মানুষজন নিজেদের ইচ্ছেমত নামও রাখতে পারে না। চীনের সরকার তাদের ইসলামিক নাম রাখতে বাধা দেয় এবং চীনের সংস্কৃতির সাথে জুড়ে থাকা নাম দিতে বাধ্য করে। উইঘুর মুসলিমদের কি করছে, কাদের সাথে মেলামেশা করছে, কি ধরনের খাওয়া দাওয়া করছে ইত্যাদি লক্ষ রাখার জন্য চীন গোয়েন্দা নিযুক্ত করে রেখেছে।

ডলকন ঈসা চীনের সাথে বিশ্বের ব্যবসায়ীক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করা উচিত বলে দাবি করেছেন। মানবাধিকারের রক্ষার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া উচিত বলে মনে করেন ডালকন ঈসা। ক্যাম্পেন ফর উইঘুরের সভাপতি বলেছেন, আমেরিকার সরকার চীনকে ইকোনোমিক ঝটকা দিতে শুরু করেছে সেটা পুরো বিশ্বের বাকি দেশগুলিরও করা উচিত। ক্যাম্পেন ফর উইঘুরের সভাপতিও ডালকন ইসার বক্তব্যগুলিকে সমর্থন করেছেন এবং চীনের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছন।

Back to top button
Close