নতুন খবরভারতবর্ষরাজনীতি

সমীক্ষাঃ যোগী ঝড়ে কাবু উত্তর প্রদেশ, ফের বিজেপিই ক্ষমতায় আসার ইঙ্গিত

নয়া দিল্লীঃ একুশে বাংলায় ভোট হয়েছে। আর বাইশে ভোট হতে চলেছে ভারতের সবথেকে বড় রাজ্য উত্তর প্রদেশে। ইতিমধ্যে যোগীরাজ্যে নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। শাসক বিরোধী দুই দলই কোমর বেঁধে ময়দানে নেমে পড়েছে। তবে করোনার কারণে কেউই বড়সড় জনসভা অথবা জমায়েত করতে পারছে না। উত্তর প্রদেশে দিন কয়েক আগে পঞ্চায়েত নির্বাচন হয়েছে। সেই নির্বাচনকে বিধানসভার সেমিফাইনাল হিসেবে নিয়েছিল সবাই। আর সেই নির্বাচনে বিজেপির জয়ের ডঙ্কা বেজেছে। এখন প্রশ্ন উঠছে যে, যোগী রাজ্যে আসন্ন নির্বাচনে কার ভাগ্যের শিকে ছিঁড়বে? কার দখলে যাবে মসনদ? আর এই নিয়ে সমীক্ষা করেছে TIMSE NOW। তাঁদের সমীক্ষায় অভাবনীয় তথ্য উঠে এসেছে।

সমীক্ষা অনুযায়ী, উত্তর প্রদেশের ৪৩.১ শতাংশ মানুষ চায় যে বিজেপি ক্ষমতায় থাকুক। অখিলেশ যাদবকে মসনদে দেখতে চান ২৯.৬ শতাংশ মানুষ। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বহুজন সমাজ পার্টির প্রধান মায়াবতীকে মসনদে দেখতে চান ১০.১ শতাংশ মানুষ। কংগ্রেসের পক্ষে রায় দিয়েছেন ৮.১ শতাংশ মানুষ। সমীক্ষা ৩.২ শতাংশ মানুষ নির্দলীয়দের হয়ে রায় দিয়েছেন। আর ৩.১ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন যে, ফলাফল ত্রিশঙ্কু হতে পারে। এছাড়াও ২.৮ শতাংশ মানুষ কোনও মতামত দিতে চাননি।

মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যোগী আদিত্যনাথ কেমন কাজ করেছে? এই প্রশ্নের উত্তরে ৩১.৭ শতাংশ জানিয়েছেন যে খুব ভালো কাজ করেছেন। ২৩.৭ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন যে মোটামুটি কাজ করেছে। ৩৯.৭ শতাংশ জানিয়েছেন খুব খারাপ কাজ করেছে।

এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কাকে বেশী পছন্দ? এই প্রশ্ন করায় ৪২.২ শতাংশ মানুষ যোগী আদিত্যনাথকে ভোট দিয়েছেন। ৩২.২ শতাংশ মানুষ অখিলেশ যাদবকে ভোট দিয়েছেন। মায়াবতীর উপর ১৭ শতাংশ মানুষ ভরসা করেছেন। আর সর্বনিম্ন ২.৯ শতাংশ মানুষ প্রিয়াঙ্কা বঢড়াকে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চেয়েছেন।

উল্লেখ্য, উত্তর প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে সবার নজর টিকে রয়েছে, কারণ সেটিই হল দিল্লীর মসনদ দখল করার চাবিকাঠি। পাশাপাশি, বিজেপির পোস্টার বয় যোগী আদিত্যনাথকে হারাতে পারলে অর্ধেক কাজ সফল হবে বলে মত বিরোধীদের। আর এই কারণে তাঁরাও আদা-জল খেয়ে মাঠে নামছে। ইতিমধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসেরও কয়েকটি পার্টি অফিস খুলেছে যোগীরাজ্যে। এখন দেখার বিষয় এটাই যে, তৃণমূল নির্বাচনে লড়াই করে কী না।

Related Articles

Back to top button