নতুন খবরভারতবর্ষরাজনীতি

যোগী আমলে উত্তর প্রদেশে বন্ধ ৮,৫০০ মাদ্রাসা, চার বছরে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি একটিকেও

নয়া দিল্লিঃ ২০১৭ সালে মাদ্রাসাগুলিকে অনলাইনে নথিভুক্ত করার জন্য পোর্টাল শুরু হয়েছিল উত্তর প্রদেশে। যেই সময় ওই পোর্টালের শুরু হয়েছিল, সেই সময় গোটা উত্তর প্রদেশে ১৯ হাজারের বেশি মাদ্রাসা ছিল। পোর্টালে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে স্বেচ্ছায় নাম নথিভুক্ত করতে হত। নাম নথিভুক্ত করার পর জেলা স্তরে তদন্ত চালানো হয়। তদন্ত চালানোর পর মাদ্রাসার সংখ্যা কমে সাড়ে দশ হাজার হয়ে যায়। এর মানে এই যে উত্তর প্রদেশে সাড়ে আট হাজার মাদ্রাসা বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

রাজধানী দিল্লিতে সংখ্যালঘু মন্ত্রালয়ের একটি সেমিনারে এই তথ্য সামনে আসে। সেমিনারের পরেই জানা যায় যে, উত্তর প্রদেশে পোর্টাল শুরু হওয়ার পর সাড়ে আট হাজার মাদ্রাসা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। মন্ত্রালয়ের তরফ থেকে প্রশ্ন তলা হয়েছে যে, যদি প্রতিটি মাদ্রাসায় অনুপাতে ৫০টি করেও বাচ্চা থাকে, তাহলে চার লক্ষ বাচ্চা কোথায় গেলও? এই ড্রপ আউট বাচ্চাদের খোঁজার জন্য কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে? বাচ্চাদের ভবিষ্যতের কী হবে?

এরপরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, উত্তর প্রদেশের সংখ্যালঘু উন্নয়ন বোর্ড এই মাদ্রাসাছুটদের ডেটা তৈরি করবে। এরপর তাঁদের অন্য স্কুল বা মাদ্রাসায় পাঠানো হবে।

যোগীরাজ্যে বিগত চার বছরে কোনও নতুন কোনও মাদ্রাসাকেই স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। আর ওই চার লক্ষ বাচ্চাদের ড্রপ আউট হওয়ার এটাও একটা বড় কারণ। যদিও শোনা যাচ্ছে যে, ভোটের মরশুমে কিছু মাদ্রাসাকে স্বীকৃতি দিতে পারে উত্তর প্রদেশ সরকার। তবে এটা শুধু গুঞ্জনই, বাস্তবে এই কাজ হবে কী না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

Related Articles

Back to top button