Press "Enter" to skip to content

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু অত্যাচার: মায়ের সামনে ১৫ বছ বয়সী রাজুচন্দ্র বিশ্বাসকে মারধর করলো আবু তাহের!

শেয়ার করুন -

এক সময় অখন্ড ভারতের হৃদয়স্থান হিসেবে পরিচিত ছিল বঙ্গদেশ তথা বঙ্গভূমি। সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি ও কালচারের দিক থেকে পুরো ভারতকে নেতৃত্ব দিত এই বঙ্গভূমি। পুরো ইউরোপের সম্পত্তিকে ৪ গুন করলে বঙ্গের এক প্রান্তের সম্পত্তির সমানে আসতো না। কিন্তু এখন বঙ্গভূমি বহু খন্ডে বিভক্ত হয়েছে। যার মধ্যে একটা বড়ো অংশ বাংলাদেশ নামে নতুন দেশ গঠন হয়েছে। এক সময়ে হিন্দু বহুল থাকা বাংলাদেশ এখন হিন্দু শুন্যের দিকে এগিয়ে চলেছে। বাংলাদেশ থেকে হিন্দু অত্যাচারের খবর সামনে আসে না। এমন দিন খুব কমই দেখা যায়। সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে সংখ্যালঘু অত্যাচ্চারের একটা ভিডিও ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে গ্রাম প্রধান এক হিন্দু বাড়িতে এসে উপদ্রব চালাচ্ছে। হিন্দু বাড়িতে এসে এক মহিলার সামনেই তার বাচ্চাকে মারধর করছে। ১৫ বছর বয়সী ছেলেটির মানসিক সমস্যা রয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে। যদিও অনেকে বলেছে যে বিষয়টি পারিবারিক সমস্যা। অনেকে দাবি করেছে বাচ্চা ছেলেটি গাল মন্দ করায় আবু তাহের নামের ওই ব্যাক্তি মারধর করেছে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছেলেটির নাম রাজুচন্দ্র বিশ্বাস।

বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলার কাজিয়াতল গ্রামের পুবপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটিত হয়েছে। যে ব্যাক্তিটি মানসিকভাবে অসুস্থ বাচ্চা ছেলের উপর অত্যাচার করছে সে বাংলাদেশের এক রাজনৈতিক পার্টির নেতা। অত্যাচারিত কিশোরের দাদা সজল চন্দ্র বিশ্বাস ঘটনাটি জানার পর মুরাদনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ অবশ্য সাথে সাথে একশন নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতা আবু তাহেরকে গ্রেফতার করেছে।

আড়াই মিনিটের যে ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে রাজুকে অবমিবলীগের নেতা লাথি মারছে। শীতের মধ্যে রাজুর জামা কাপড় খুলে নিয়ে তার উপর অত্যাচার করা হচ্ছে। রাজু ছেড়ে দেওয়া অবেদন করলে তখন আবু তাহের আরো জোরে জোরে রাজুর মুখে ও বুকে লাথি মারতে থাকে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, হিন্দুদের উপর অত্যাচারের খবর বাংলাদেশ নিত্য আসতেই থাকে।