নতুন খবর

আমাকে ক্ষমা করে দিন, আমি কাউকে আঘাত দিতে চাইনি: ওয়ারিস পাঠান

অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন () এর নেতা () ‘১৫ কোটি মুসলিম ১০০ কোটি হিন্দুকে শিক্ষা দেবে বলে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। মূলত মুসলিমদের উস্কানি দিতে ও ভোট ব্যাঙ্ক তৈরি করতে সে ওই উক্তি দিয়েছিল। তবে এখন ের অবস্থা কাহিল হয়ে পড়েছে। এখন হিন্দু সমাজের কাছে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয়েছে। বিতর্কিত ভাষণের পর কট্টরপন্থী এখন লিখিতভাবে ক্ষমা চেয়েছে।

কর্ণাটকের কুলবার্গায় ওয়ারিস পাঠান একজন মুসলিম জনতার সামনে এবং আসাদউদ্দিন ওয়েসীর উপস্থিতিতে হুমকি দিয়েছিলেন – আমরা ১৫ কোটি মুসলমান ১০০ কোটি হিন্দুদের শিক্ষা দিতে যথেষ্ট। এই মন্তব্যের পর দেশে কট্টরপন্থীর বিরুদ্ধে নানা জায়গায় মামলা দায়ের হতে শুরু হয়।

ওয়ারিস পাঠানের মহারাষ্ট্রে বাসিন্দা, সেখানেও তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। দেশের জনতা ওয়ারিস পাঠানের বিরুদ্ধে কার্যবাহি করার দাবি তুলতে শুরু করে। এরপর চাপে পরে ওয়ারিস পাঠান ক্ষমা চাইতে শুরু করেছে। ওয়ারিস পাঠান বলেছেন আমি হিন্দুদের বিরুদ্ধে বলতে চাইনি, আমি সরকারের বিরুদ্ধে বলেছি।

কর্ণাটকে ওয়ারিস পাঠানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হতেই সে সমানা সামনি এসে ক্ষমা চেয়েছে। ওয়ারিস পাঠান বলেছেন- আমি অন্যকিছু বলতে চেয়েছিলাম কিন্তু আমার বক্তব্যকে ভেঙে চুরে মানুষের কাছে পেশ করা হয়েছে। আমাকে ক্ষমা করে দেওয়া হোক, আমি কারোর আস্থাকে আঘাত করতে চাইনি। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, ওয়ারিস পাঠনের মতো বক্তব্য আসাউদ্দিন ওয়েসীর ভাই আকবরউদ্দিন ওয়েসীও দিয়েছিল। আকবরউদ্দিন ওয়েসী পুলিশ সরিয়ে নিয়ে ১৫ মিনিটে ভারতের হিন্দুদের শেষ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিল।

Back to top button
Close