নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

বৃষ্টি পণ্ড করতে পারে ভোট গ্রহণ, ভবানীপুর ভাসার আশঙ্কা আবহাওয়ার পূর্বাভাসে

কলকাতাঃ বর্তমানে ভবানীপুর হয়ে উঠেছে চাঁদের হাট। নামীদামী শিল্পীদের থেকে শুরু করে রাজ্যের বড়বড় মন্ত্রী, নেতারা এখন সব ভবানীপুরে আড্ডা জমিয়েছে। আর তাঁর প্রধান কারণ হল, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ভবানীপুর কেন্দ্রে হতে চলেছে উপনির্বাচন। ওই কেন্দ্রে এবার প্রার্থী স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা। শাসক দল আর সরকার একদিকে যেমন ওই কেন্দ্রে বিজেপির আনাগোনা নিয়ে চিন্তিত, তেমনই অতি বৃষ্টির কারণে জমা জল নিয়েও উদ্বিগ্ন।

আবহাওয়া দফতর ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে যে, বঙ্গোপসাগরে শনিবার থেকে আরও একটি নিম্নচাপ ঘনীভূত হতে চলেছে। যার কারণে দক্ষিণ বঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে চলবে টানা বৃষ্টি। একেতেই টানা বৃষ্টিতে বেহাল অবস্থা হয়েছে কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী জেলা গুলির। মহানগরীতে কোথাও দুই ফুট জল, আবার কোথাও তাঁর থেকেও বেশি। আর এই কারণে আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দলকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফ থেকে।

জলমগ্ন কলকাতার বেহাল চিত্র ধরা পড়েছে এসএসকেএম হাসপাতালেও। সেখানে প্রসূতি সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে জল ঢুকে গিয়ে চিকিৎসক, রোগী সবাইকেই নাজেহাল করে ছাড়ছে। অন্যদিকে, জমা জলের কারণে মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি নির্বাচনী সভাও বাতিল হয়েছে।

ভবানীপুরের একবালপুরের ৭৭ নম্বর ওয়ার্ডে মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রীর নির্বাচনী সভা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেখানে জল জমে থাকার দরুন কোনও ঝুঁকি না নিয়েই সেই সভা বাতিল হয়ে যায়। খোদ রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সভার আগে এলাকা পরিদর্শন করতে গিয়েছিলেন। কিন্তু অথৈ জল দেখে তিনি নিজেই সভা বাতিল করার ঘোষণা করেন। ওই সভা মঙ্গলবারের পরিবর্তে বুধবার হওয়ার কথা। কিন্তু আজও তা হবে কী না, সেটা নিয়ে রয়েছে সংশয়। আজকের আবহাওয়া

একদিকে আগের জলই এখনও ঠিকঠাক নামেনি, আরেকদিকে, নতুন করে নিম্নচাপ ঘনীভূত হওয়ায় সরকারের চিন্তা আরও বেড়েছে। শহর, গ্রাম চারিদিকের মানুষ যখন এই জলযন্ত্রণায় ভুগছে। তখন নতুন করে আবারও জল বাড়ার বার্তা পেয়ে ঘুম উড়েছে নবান্নের।

Related Articles

Back to top button