নতুন খবর

NDRF এ কর্মরত জওয়ানের অন্তসত্ত্বা স্ত্রীর বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর অভিযোগ! স্বাস্থ্য ব্যাবস্থার উপর উঠছে প্রশ্ন

আরো একবার কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হল পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য পরিষেবাকে। হাসপাতালের গাফিলতির কারণে দেশের সেবায় নিযুক্ত এক NDRF এর কর্মীর স্ত্রীর মৃত্যু ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। NDRF এর কর্মী কল্লোল ঘোষের স্ত্রী সৌমি ঘোষ রাত ১২ থেকে শুরু করে সকাল ৯ অবধি হাসপাতালে হাসপাতালে ঘুরেও সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হয়েছে বলে অভিযোগ। সৌমি ঘোষ ৭ মাসের গর্ভবতী ছিলেন এবং হটাৎ শ্বাসকষ্ট এর কারণে হাসপাতালে হাসপাতালে ছুটে যান। তবে সঠিক পরিষেবার না পাওয়ার কারণে জন্য স্ত্রী সৌমি ঘোষের মৃত্যু হয় বলে জানান স্বামী কল্লোল ঘোষ।

কল্লোল ঘোষ ঘটনটি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ” চিকিৎসকরা তোমার সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করার জন্য তুমি আমদের ৭ মাসের বাচ্চাকে নিয়ে চলে গেলে। দেশের সৈনিক হওয়ার কারণে আমি তোমায় ছেড়ে দেশের রক্ষা করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তুমি সঠিকভাবে চিকিৎসা পেলে না। এতটাই স্বাস্থ্য পরিষেবা খারাপ পশ্চিমবঙ্গে।”

কল্লোল ঘোষ বলেছেন, আমি প্রশাসনকে প্রশ্ন করতে চাই স্বাস্থ্যব্যাবস্থা কি এতটাই খারাপ যে একজন অন্তঃসত্ত্বা মাকে এইভাবে চলে যেতে হলো উনি আরো বলেন, ১১ সেপ্টেম্বর দিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী পশ্চিমবঙ্গে সম্পূর্ণ লকডাউন ডেকে ছিলেন। সেই কারণে আমি আসতেও পারিনি। আর না আসার জন্য আমার স্ত্রীকে এইভাবে চলে যেতে হল?

 

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ থেকে শুরু করে অন্যান্য নার্সিংহোম ঘুরেও কেন সঠিক চিকিৎসা পেল না, অন্তঃসত্ত্বা মায়ের চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার আগে থাকে তা সত্ত্বেও বঞ্চিত কেন হতে হলো? প্রশ্ন তুলেছেন মৃত সৌমি ঘোষের স্বামী। প্রসঙ্গত কল্লোল ঘোষ প্রশাসনের উপর প্রশ্নঃ তুলে যে ভিডিও প্রকাশ করেছেন তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। যারপর অনেকে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসনের উপর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। দেশের রক্ষাকারী সৈনিকদের পরিবার কেন পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হবে তার উপর প্রশ্ন তুলেছেন নেটিজনরা।

Back to top button
Close