Press "Enter" to skip to content

অযোধ্যায় মসজিদের শিলন্যাস অনুষ্ঠানে যাবেন না বলে জানিয়ে দিলেন যোগী আদিত্যনাথ

শেয়ার করুন -

লখনউঃ অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো অনুষ্ঠানের পর উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) মসজিদের শিলন্যাস নিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আমাকে কেউ ডাকেনি। আর আমি যাবও না। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে প্রশ্ন করা হয় যে, বিরোধীরা বলছে আপনি সমস্ত ধর্মের মানুষকে রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর জন্য আমন্ত্রণ করেছেন, আর এসেছেও সবাই। কিন্তু আগামী দিনে যখন অযোধ্যায় মসজিদ নির্মাণ শুরু হবে, বলা হচ্ছে, তখন মুখ্যমন্ত্রী সেখানে যাবেন না। এই প্রশ্নের উত্তরে যোগী বলেন, আমার যেটা কাজ সেটাই করব, আর আমার কাজ সবসময় আমি কর্তব্য আর ধর্ম মেনে চলি। আমি জানি ওখানে আমাকে কেউ ডাকবে না। তাই আমি যাবও না।

জানিয়ে দিই, সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যায় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে ৫ একর জমি দেওয়ার কথা বলেছিল। উত্তর প্রদেশ সরকার ৫ ফেব্রুয়ারি অযোধ্যা জেলার সদর দফতর থেকে ১৮কিমি দূরে পাঁচ একর জমি দেওয়া হয়েছিল। সেখানেই মসজিদের নির্মাণ হবে।

আরেকদিকে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ কংগ্রেসের মহাসচিব প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ‘রাম সেবক” বয়ানেও প্রতিক্রিয়া দেন। উনি বলেন, ভগবান রাম সবার, আর আমরা এটা আগে থেকেই বসে আসছি। এই সদবুদ্ধি আগেই আসার দরকার ছিল।

অযোধ্যায় উন্নয়নের কাজ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন, অযোধ্যায় সব সবরকমের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে, আর সবাইকে কাজও দেওয়া হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি বেশ কয়েকবার অযোধ্যা এসেছি। এর আগের মুখ্যমন্ত্রী এখানে আসার জন্য ইতস্তত বোধ করত। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন, গণতন্ত্রে জনভাবনার সন্মান করতে হবে, উন্নয়নের ইস্যু এবং অন্য ইস্যু গুলোকেও সন্মান করতে হবে।

যোগী আদিত্যনাথ বলেন, করোনার কারণে ভূমি পূজন অনুষ্ঠান বড় করা হয়নি, আর এই কারণে কোন রাজনৈতিক দলের কোন ব্যাক্তিকে আমন্ত্রণও জানানো হয়নি। উনি জানান, প্রতিটি সম্প্রদায়ের মানুষই এই অনুষ্ঠানে আসতে চেয়েছিলেন, কিন্তু করোনার কারণে অতিথি আমন্ত্রণ সীমিত করা হয়েছে। বিজেপির কোন নেতা এই অনুষ্ঠানে অংশ নেন নি। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি আর রাজ্য সভাপতিও এই অনুষ্ঠানে অংশ নেন নি।