নতুন খবরভারতবর্ষ

মন্দির, মসজিদের লাউডস্পিকার ব্যাবহৃত হবে সরকারি কাজের প্রচারের জন্য, UP তে লাগু নতুন নিয়ম

সাধারণত মন্দির মসজিদের লাউড স্পিকার ধর্মীয় কর্মসূচীতে ব্যাবহৃত হয়। তবে এবার যোগী সরকার মন্দির মসজিদের লাউড স্পিকার জনগণের সেবায় আরো ভালোভাবে নিয়োজিত করার সিধান্ত নিয়েছেন। পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) মন্দির,মসজিদের লাউড স্পীকারের থেকে এবার সরকারি ঘোষণাও শোনা যাবে। তে লাউডস্পিকার চালানো নিয়ে বহুবার অনেক দ্বন্দ হয়েছে। তবে এবার লাউডস্পিকারকে নতুন ভাবে কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। মন্দির হোক বা মসজিদ সমস্থ ধার্মিক কেন্দ্রের লাউডস্পিকারকে জনসেবায় লাগানোর সিধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।

এই প্রকল্পটি পরিকল্পনা করেছে পাশ্চিমাঞ্চল বিদ্যুত বিতরণ নিগম লিমিটেড (PVVNL)। পশ্চিম উত্তর প্রদেশের ১৪ টি জেলা যেগুলি প্যাসিচঞ্চল বিদ্যুত বিতান নিগম লিমিটেডের (পিভিভিএনএল) অধীনে চলেছে, যার মধ্যে রয়েছে মীরট, বাগপাট, গাজিয়াবাদ, বুলান্দশহর, হাপুর, গৌতম বুধনগর, সাহারানপুর, মুজাফফরনগর, শমলি, মোরদাবাদ, সাম্ভর, রামপুর ও বিরাজ।

১৪ টি জেলায় খুব শীঘ্রই প্রকল্পগুলি লাগু করা হবে। এই জেলাগুলিতে বিদ্যুৎ বিভাগের সমস্থ তথ্য জানাতে ব্যাবহার করা হবে। টিউবওয়েল প্রকল্পের পাশাপাশি চলমান অন্যান্য প্রকল্পের তথ্য মন্দির মসজিদের লাউডস্পিকারের মাধ্যমে জানানো হবে। এছাড়াও কৃষকদের কিছু প্রকল্পও মন্দির মসজিদের মাধ্যমে জানানো হবে।

Yogi Adityanath

প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, প্রাচীন সময়ে ভারতে মন্দির নানা সামাজিক কাজে ব্যাবহৃত হতো। কিছু মন্দিরে শিক্ষা দেওয়ার কাজ হতো আবার কিছু মন্দির সমাজের পরিচালনার জন্য কাজ করতো। কিন্তু বিদেশী আক্রমনের পর থেকে ধীরে ধীরে পুরো সিস্টেম ভেঙে পড়েছে। এখন পুনরায় UP তে মন্দির ও মসজিদের লাউডস্পিকারের উপর এই সিধান্ত শুনে অনেকেই খুশি ব্যাক্ত করেছেন।

Back to top button
Close