নতুন খবরভারতবর্ষ

যোগী আদিত্যনাথকে গুলি করতে চেয়েছিল উন্মাদী তানভীর খান! পাঠানো হল জেলে, দেওয়া হবে বেধড়ক ওষুধ

করোনা ভাইরাসের কারণে গোটা দেশে যে লকডাউন চলছে, এই লকডাউনের মাঝে এখন মুসলিমদের পবিত্র রমজান মাস শুরু হয়েছে। বিভিন্ন রাজ্যের সরকারগুলি নামাজীদের ঘরে বসে নামাজ পড়তে এবং সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ করতে আবেদন করছে। নামাজ ও আজানের নির্দেশনায় ক্রুদ্ধ হয়ে তানভীর খান নামে এক ব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে গুলি করার কথা বলেছিল।

তানভীর খান তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করেছিল যে, “আজদার দিলদার নগর এবং পুরো কামসরোভারে (কামসর) আজান হচ্ছে না। যোগীকে গুলি করে দাও। ” পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথে তানভীর খান তার অ্যাকাউন্টটি নিষ্ক্রিয় করে দেয়। তবে কিছু লোক টুইটারে তাঁর পোস্টের একটি স্ক্রিনশট নিয়ে উত্তরপ্রদেশ পুলিশকে এটি অবহিত করার জন্য আবেদন করে।

এখন খবর আসছে যে তানভীর খানকে গ্রেফতার করে নেওয়া হয়েছে। একই সাথে উন্মাদী তানভীর খানের বিরুদ্ধে বেশকিছু ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে গুলি মারতে চাওয়া তানভীর খানকে এখন জেলে পাঠানো হয়েছে।

তানভীর খান একজন পুলিশকর্মী বলে জানা গেছে। একজন পুলিশকর্মীর মধ্যে এমন কট্টর মানসিকতা কিভাবে থাকতে পারে তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। এমন মানসিকতাসম্পন্ন লোকজন পুলিশের মতো দায়িত্বশীল পেশায় থেকে কি করে তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

রমজান মাসে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ করতে সরকার মুসলিমদের মসজিদের পরিবর্তে ঘরে নামাজ পড়ার আবেদন করেছে। কিন্তু সরকার কর্তৃক জারি করা এই নির্দেশাবলীর অনেক লোক ক্রমাগত বিরোধিতা করে চলেছে। যার মধ্যে তানভীর খানের মতো পুলিশকর্মীও রয়েছে। অনেকে এই ঘটনার উপর মন্তব্য করে বলেছেন পেশা কখনো আতঙ্কবাদী মানসিকতার পরিবর্তন করতে পারে না।

Back to top button
Close