Press "Enter" to skip to content

গোহত্যা তো দূরের কথা, বকরি ঈদে হিন্দু এলাকা দিয়ে মাংস নিয়ে যাওয়াতেও নিষেধাজ্ঞা জারি করল যোগী আদিত্যনাথ

শেয়ার করুন -

লখনউঃ উত্তর প্রদেশের (Uttar Pradesh) যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) সরকার বকরি ঈদ নিয়ে কড়া গাইডলাইন জারি করেছে। সরকার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে নতুন গাইডলাইন জারি করেছে। সরকার বকরি ঈদের সময় কোন মসজিদ, ঈদগাহ অথবা দরগাহ-এ ভিড় জড় না করার নির্দেশিকা জারি করেছে। উত্তর প্রদেশের DGP দ্বারা জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে সাম্প্রদায়িক অনুভূতিতে যেন আঘাত না লাগে, সেদিকে নজর রাখার কথা বলা হয়েছে।

বয়ানে সমস্ত জেলা পুলিশ আধিকারিকদের নির্দেশিত করা হয়েছে যে, ঈদের কুরবানির সময় গোহত্যা যেন না করা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, নিষেধাজ্ঞা জারি করা পশুর কুরবানি হলে গুজবের ফলে এলাকায় উত্তেজনা বাড়বে।

এর সাথে সাথে সার্বজনীন স্থানে কুরবানি আর অ-মুসলিম এলাকা দিয়ে মাংস নিয়ে যাওয়ার উপরেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। যোগী সরকারের গাইডলাইন সমস্ত পুলিশকর্মীকে অক্ষরে অক্ষরে পালন করার নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। DGP এর তরফ থেকে জারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, ‘মানুষ যাতে একজায়গায় জড় না হয়, তারজন্য পুলিশকে লাউডস্পীকারের মাধ্যমে সাবধানীবার্তা দিতে হবে। এরসাথে সাথে পুলিশকর্মীদের সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিশেষ নজর রাখার কথা বলা হয়েছে।

নির্দেশিকায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো খবর অথবা গুজবের বিরুদ্ধে তৎক্ষণাৎ অ্যাকশন নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। পুলিশ আধিকারিকদের ছোট থেকে ছোট ঘটনাকে সঙ্গিন ভাবে নিতে বলা হয়েছে। আপনাদের জানিয়ে দিই, এবার বকরি ঈদ ১লা আগস্ট পালিত হবে। করোনার কারণে এবারের বকরি ঈদ উৎসবের আনন্দ অনেকটাই ফিকে হয়ে যাবে।